Skip to content
Home » ইসলামী ব্যাংক একাউন্ট খোলার নিয়ম

ইসলামী ব্যাংক একাউন্ট খোলার নিয়ম

আসসালামু আলাইকুম সুপ্রিয় পাঠক বন্ধুরা আশা করি সকলেই ভাল আছেন। আপনি নিশ্চয়ই উপলব্ধি করেছেন ইসলামী ব্যাংক বাংলাদেশের একটি জনপ্রিয় ব্যাংকিং ব্যবস্থা। ইসলামী ব্যাংক একটি বেসরকারি ব্যাংকিং প্রতিষ্ঠান তবুও ইসলামী ব্যাংকের সুযোগ সুবিধা অন্যান্য ব্যাংকিংয়ের থেকে অনেক ভিন্ন এবং সুবিধা জনক। তাই ইসলামী ব্যাংক একাউন্টের সাথে সম্পৃক্ত থেকে লেনদেন করতে আগ্রহী অনেকেই। কিন্তু ইসলামী ব্যাংক একাউন্ট খোলার সঠিক নিয়ম ও সহজ নিয়ম কানুন না জানার কারণে অনেকেই ইসলামী ব্যাংকে একাউন্ট খুলতে পারেনা। আজকের এই আর্টিকেলটি তাদের জন্যই যারা ইসলামী ব্যাংকে একাউন্ট খোলার নিয়ম সম্পর্কে জানতে চান। তো চলুন শুরু করা যাক ইসলামী ব্যাংক একাউন্ট খোলার নিয়ম সম্পর্কে জেনে আসি। বাংলাদেশের প্রত্যেকটি ব্যাংকে একাউন্ট করার নিয়ম প্রায় একই। ব্যাংক একাউন্ট খুলতে মূলত কিছু ডকুমেন্টস এবং নমিনের ডকুমেন্টস নিয়ে ব্যাংক একাউন্ট হোল্ডারকে জমা দিতে হয়।

ইসলামী ব্যাংক একাউন্ট খোলার নিয়ম

ব্যাংক একাউন্ট খোলার আগে আপনাকে জানতে হবে ইসলামী ব্যাংক কয় ধরনের অ্যাকাউন্ট করা যায় এবং আপনি কি ধরনের অ্যাকাউন্ট করতে চাচ্ছেন। তাই প্রত্যেকের সুবিধার্থে ইসলামী ব্যাংক একাউন্ট খোলার ধরন জানিয়ে দিচ্ছি। ইসলামী ব্যাংকে মূলত তিন ধরনের একাউন্ট করা যায়।
১) সেভিংস একাউন্ট
২) কারেন্ট একাউন্ট
৩) স্টুডেন্ট একাউন্ট

ইসলামী ব্যাংক সেভিংস একাউন্ট খোলার নিয়ম

ইসলামী ব্যাংক এর উপরোক্ত তিনটি অ্যাকাউন্ট সিস্টেম এর মধ্যে সবচেয়ে জনপ্রিয় হচ্ছে সেভিংস একাউন্ট। কারণ সেভিংস একাউন্টের মাধ্যমে গ্রাহক তার মূলধন থেকে লাভ পেয়ে থাকেন। ব্যক্তিগত সেভিংস একাউন্ট কিংবা সঞ্চয় একাউন্ট খুলতে আপনি ব্যাংকের যে ব্রাঞ্চে একাউন্ট খুলতে ইচ্ছুক সেই ব্রাঞ্চের অফিসার কে আপনার প্রয়োজনীয় কাগজপত্র জমা দিতে হবে।

যে সকল কাগজগুলো জমা দিতে হবে:

*দুই কপি পাসপোর্ট সাইজের সত্যায়িত ছবি
*অ্যাকাউন্ট হোল্ডার দ্বারা সত্যায়িত নমিনির এক কপি ছবি
*নমিনির ভোটার আইডি কার্ডের ফটোকপি।
*গ্রাহকের ভোটার আইডি কার্ড/পাসপোর্ট/চেয়ারমান সার্টিফিকেট।
*কমপক্ষে ৫০০ টাকা তাৎক্ষণিক ডিপোজিট।
*অ্যাকাউন্ট মালিকের স্বাক্ষর।
উপরে উল্লেখিত ডকুমেন্টস গুলি একাউন্ট হোল্ডারের নিকট জমা দেয়ার পর তিনি ফরম পূরণ করবেন এবং ফরমের কয়েক জায়গায় আপনার স্বাক্ষরের প্রয়োজন হবে। আপনার ফিঙ্গারপ্রিন্ট দিতে হবে। এবং কমপক্ষে ৫০০ টাকা ডিপোজিট হিসেবে জমা করতে হবে।

ইসলামী ব্যাংক কারেন্ট একাউন্ট খোলার নিয়ম

সুখি পাঠক ইসলামী ব্যাংকের আরো একটি জনপ্রিয় একাউন্ট সেটি হচ্ছে ইসলামী ব্যাংক কারেন্ট অ্যাকাউন্ট। এই অ্যাকাউন্ট খুলতে যা যা লাগে:
১.অ্যাকাউন্ট খোলার ফরম
২. কমপক্ষে ১ হাজার টাকা ডিপোজিট অর্থাৎ অ্যাকাউন্টে এক হাজার টাকা রাখতে হবে।
৩. দুই কপি সত্যায়িত করা পাসপোর্ট সাইজের ছবি
৪ . নমিনির এক কপি অ্যাকাউন্ট হোল্ডার দ্বারা সত্যায়িত করা পাসপোর্ট সাইজের ছবি ও ভোটার আইডি কার্ডের ফটোকপি।
৫. আপনার নিজের ভোটার আইডি কার্ড কিংবা পাসপোর্ট অথবা চেয়ারম্যান সার্টিফিকেট।
৬. যেহেতু আপনি একাউন্ট খুলবেন তাই আপনার স্বাক্ষরও প্রয়োজন হবে।
ব্যাক ব্যাংক হোল্ডারদের নিকট থেকে প্রাপ্ত ফরম সংগ্রহ করে পূরণ করতে হবে অথবা আমাদের ব্যাংক অ্যাকাউন্ট খোলার ফর্ম ডাউনলোড করে নিতে পারে।  উপরে উল্লেখিত প্রত্যেকটি জিনিস সংগ্রহ করে নিকটস্থ ইসলামী ব্যাংকের শাখা অথবা এজেন্ট অফিসে যান। সেখানে দায়িত্ব রত কর্মকর্তাকে একাউন্ট খোলার ব্যাপারে অবহিত করুন তিনি আপনার হয়ে সম্পূর্ণ ফর্মটি পূরণ করে দিবেন। ফরমের কিছু জায়গায় আপনার স্বাক্ষর প্রয়োজন হবে সেখানে তিনি আপনার স্বাক্ষর দিতে বলবেন এই স্বাক্ষরটি খুবই যত্ন সহকারে দিবেন।
পরবর্তীতে টাকা তোলার সময় এই স্বাক্ষরটির মাধ্যমেই তুলতে হবে তাই স্বাক্ষর টি মনে রাখুন এরপর ফিঙ্গারপ্রিন্ট বা টিপসের দরকার পড়বে দায়িত্ব কর্মকর্তা আপনার আঙ্গুলের ফিঙ্গারপ্রিন্ট নিবেন। এ সমস্ত প্রসেসিং শেষ হতে ২০ থেকে ৩০ মিনিট সময় লাগবে এরপর ১০০০ টাকা একাউন্টে জমা রাখতে হবে। উপরের সম্পূর্ণ প্রসেসিং শেষ হয়ে গেলেই আপনার একাউন্ট খোলা হয়ে গেল ইসলামী ব্যাংকের কারেন্ট একাউন্ট এখন থেকে যে কোন দেশ থেকে টাকা লেনদেন করতে পারবেন আরো একটি গুরুত্বপূর্ণ কথা চেক বই কখন দিবে সেই বিষয়টি জেনে নিতে হবে অ্যাকাউন্ট হোল্ডারের নিকট থেকে।

ইসলামী ব্যাংক স্টুডেন্ট একাউন্ট খোলার নিয়ম

ছাত্রজীবনে সঞ্চয়ের অভ্যাস তৈরি করা একটি গুরুত্বপূর্ণ কাজ। শিক্ষার্থী থাকাকালীন সঞ্চয়ের প্রতি মনোযোগী হতে হবে আর স্টুডেন্টদের জন্য বিশেষ সুবিধা সমূহ স্টুডেন্ট একাউন্ট খোলার সুযোগ দিচ্ছে ইসলামী ব্যাংক এই আর্টিকেলে

ইসলামী ব্যাংক স্টুডেন্ট একাউন্ট খোলার নিয়ম কানুন তুলে ধরা হলো:

ইসলামী ব্যাংক স্টুডেন্ট একাউন্ট খুলতে যা যা লাগবে। স্টুডেন্ট একাউন্ট খোলার জন্য ১৮ বছরের কম যে কোন শিক্ষার্থীর জন্য তার অভিভাবকের দরকার হয় টাকা উত্তোলনের জন্যও অভিভাবকের প্রয়োজন হয়।

ছাত্রছাত্রীদের এই বিশেষ অ্যাকাউন্ট খোলার জন্য কিছু জিনিসপত্রের দরকার হবে সেগুলো হলো:

১. অভিভাবক ও শিক্ষার্থীর প্রত্যেকের দুই কপি পাসপোর্ট সাইজের ছবি।
২. অ্যাকাউন্ট হোল্ডার দ্বারা সত্যায়িত করা নমিনির এক কপি পাসপোর্ট সাইজের ছবি
৩. গ্রাহকের অর্থাৎ ছাত্র-ছাত্রীদের ভোটার আইডি কার্ড অথবা পাসপোর্ট অথবা চেয়ারম্যান সার্টিফিকেট কিংবা স্কুল অথরিটি সার্টিফিকেট প্রয়োজন হবে.
৪. কমপক্ষে ১০০ টাকার ডিপোজিট জমা রাখতে হবে
৫.অ্যাকাউন্ট খুলতে ইচ্ছুক ছাত্র-ছাত্রীদের স্বাক্ষর প্রয়োজন হবে.
নিকটস্থ ইসলামী ব্যাংকের শাখায় গিয়ে ডাউনলোড প্রকৃত কিংবা সংগ্রহীত ফর্ম কর্মকর্তাকে দিলে তিনি পূরণ করে দিবেন বিভিন্ন স্থানে অ্যাকাউন্ট ফোল্ডারের স্বাক্ষর নিবেন নির্দিষ্ট পরিমাণ ডিপোজিট করলেই স্টুডেন্ট একাউন্ট খোলা শেষ।আমরা শুধুমাত্র ব্রাঞ্চে কি একাউন্ট খোলার নিয়ম কানুন তুলে ধরলাম এছাড়াও আপনি ঘরে বসেই ইসলামী ব্যাংক অনলাইন রেজিস্ট্রেশন করতে পারেন।

বিশেষ সতর্কতা:

অ্যাকাউন্ট সহ সুযোগ সুবিধা কেন্দ্রিক যাবতীয় প্রশ্ন বুঝতে সমস্যা হলে দায়িত্বরত কর্মকর্তাকে জিজ্ঞেস করুন। শেষ কথা ,   ইসলামী ব্যাংক একটি জনপ্রিয় ব্যাংকিং ব্যবস্থা। বেসরকারি ব্যাংক হলেও ইসলামের নিয়ম নীতি সহ বিভিন্ন সুযোগ-সুবিধা নিয়ে ইসলামী ব্যাংক কাজ করে যাচ্ছে। তাই অনেকেই ইসলামী ব্যাংকের অ্যাকাউন্ট করতে চান এবং তিন প্রকারের একাউন্ট এর মধ্যে আপনার যেটি প্রয়োজন উপরুক্ত আর্টিকেলটি মনোযোগ সহকারে পড়ে আপনি অ্যাকাউন্ট হোল্ডারে যোগাযোগ করে অনায়াসেই আপনার কাঙ্খিত একাউন্টটি করে নিতে পারেন।
অনেকেই ব্যাংক অ্যাকাউন্ট খোলার নিয়ম সম্পর্কে জানেন না এবং বিষয়টিকে অনেক জটিল মনে করেন বিধায় ব্যাংক একাউন্ট খোলা হয় না আশা করি আজকের এই আর্টিকেল পোস্ট পড়ে আপনি সহজেই একটি ব্যাংক অ্যাকাউন্ট খুলে নিতে পারবেন ‌। ব্যাংক কেন্দ্রিক যেকোনো প্রশ্ন থাকলে আমাদের কমেন্ট বক্সে জানাবেন।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *